Breaking News
Home / Uncategorized / বহি:স্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতেছাত্র বিক্ষোভে উত্তাল পবিপ্রবি ক্যাম্পাস

বহি:স্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতেছাত্র বিক্ষোভে উত্তাল পবিপ্রবি ক্যাম্পাস

 

মো: সুমন মৃধা দুমকি (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি\র‌্যাগিংয়ের দায়ে বহিস্কৃত ১৫ শিক্ষার্থীর বহি:স্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে ছাত্র বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠেছে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (পবিপ্রবি) ক্যাম্পাস।
গতকাল সোমবার (১৭ ফেব্রæয়ারী) সকাল সাড়ে ১০টায় পবিপ্রবি’র বিভিন্ন অনুষদের ৩য় সেমিষ্টারের শতাধিক বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা টিএসসি চত্তর থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করে। ক্লাশ, পরীক্ষাসহ সকল শিক্ষা কার্যক্রম বর্জণ রেখে বিক্ষোভ আন্দোলনে উত্তাল হয়ে ওঠে পুরো ক্যাম্পাস।
পবিপ্রবি’র শের-ই-বাংলা হল-১ এর গণরুমে প্রথম সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের র‌্যাগিংয়ের দায়ে বিগত ২৩ জানুয়ারি ৩য় সেমিস্টারের ১৫ শিক্ষার্থীকে ৬ মাসের সাময়িক বহিষ্কার দেয় বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন। এ বহিষ্কারদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে শিক্ষার্থীরা প্রশাসনিক ভবনের সামনে বিক্ষোভ আন্দোলনে নামে।আকস্মিক ছাত্র বিক্ষোভ আন্দোলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম কার্যত: অচল হয়ে যায়। এর আগে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বহিষ্কার প্রত্যাহারের দাবিতে রেজিস্ট্রার বরাবর একটি স্মারক লিপি প্রদান করেছেন । শিক্ষার্থীরা স্মারকলিপিতে উল্লেখ করেন, বিগত ১৩ই জানুয়ারি রাতে শের-ই-বাংলা হল-১ এ উপযুক্ত প্রমানাদি ছাড়াই আমাদের ১৫ জনসহপাঠীকে র‌্যাগিং এর অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়। উল্লেখ্য ১৪ই জানুয়ারি হলের নবীনবরণ অনুষ্ঠান থাকায় আমরা নবীন শিক্ষার্থীদের আমন্ত্রন জানাতে তাদের গণরুমে প্রবেশ করি। এসময় শিক্ষকরা এসে বাইরে থেকে রুমের দরজা লাগিয়ে দেয় এবং কিছুক্ষন পরে দরজা খুলে সবার ছবি তুলে রাখে। পরবর্তীতে ২৩ জানুয়ারি ১৫ শিক্ষার্থীকে ৬ মাসের বহিষ্কার দেয় বিশ^ বিদ্যালয় প্রশাসন। র‌্যাগিং এর সাথে সম্পৃক্ত না থাকায় এ ধরনের শাস্তিতে সাধারন শিক্ষার্থীরা আশাহত মর্মে স্মারক লিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে। সেই সাথে শিক্ষার্থীরা দুই দফা দাবিও দিয়েছে। দাবি গুলো হলো, অনতিবিলম্বে এক কার্য দিবসের মধ্যে আরোপিত বহিষ্কারদেশ প্রত্যাহার করতে হবে এবং অভিযুক্তদের দ্রæত একাডেমিক সকল কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিতে হবে। দাবি না মেনে নিলে ৩য় সেমিস্টারের শিক্ষার্থীরা ক্লাস ও পরিক্ষাসহ সকল একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ করার ঘোষনা দেন। তারা স্মারক লিপিতে উল্লেখ করে সিনিয়র ভাইদের উপর আরোপিত মিথ্যা র‌্যাগিং এর অভিযোগ প্রত্যাহার ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিশ^বিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করা এবং গুজব ছড়ানোর বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়ার কথাও বলেন। ১ম সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের কোন ধরনের র‌্যাগিং করাহয়নিমর্মে তারা স্মারকলিপিতেউল্লেখকরেন। নামপ্রকাশেঅনিচ্ছুক ৩য় সেমিস্টারের এক শিক্ষার্থী বলেন, বিশ^বিদ্যালয়প্রশাসনসম্পূর্ণ অযৌক্তিকভাবে ১৫জন শিক্ষার্থীকেবহিষ্কার করেছে। আমরা এই বহিষ্কারদেশপ্রত্যাহারচাইতানাহলেআরোকঠোর আন্দোলনেযাবো।
এব্যাপারেবিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরঅধ্যাপক ড. আবুলকাশেম চৌধুরীবলেন, একাডেমিককাউন্সিলের বৈঠকেসিদ্ধান্তহবেশাস্তিকমবেনাকি একই থাকবে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার প্রফেসর ড. স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত স্মারকলিপির সত্যতা নিশ্চিৎ করে বলেন, শীঘ্রই একাডেমিক কাউন্সিলের সভা আহবান করা হবে।

Please follow and like us:
error

About jahir

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

দেশের দুই বিভাগে বজ্রবৃষ্টির পূর্বাভাস

টানা সাতদিন ধরে সারাদেশে তাপপ্রবাহ অব্যাহত রয়েছে। আগামী তিন দিন বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া ...