Breaking News
Home / হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ধর্ম / নড়াইলের পল্লীতে তাঁরক গোঁসাইয়ের তিরোধান দিবস বিশাল কবি গানের আশোর

নড়াইলের পল্লীতে তাঁরক গোঁসাইয়ের তিরোধান দিবস বিশাল কবি গানের আশোর

 

উজ্জ্বল রায় নড়াইল জেলা প্রতিনিধিঃ

নড়াইলের জয়পুর কবিধামে দু‘দিন ব্যাপী নানা অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়েছে । জয় ঢংকার ছান্দসিক শব্দ আর হাজার হাজার মতুয়া অনুসারীদের হরিবোল ধ্বনীতে মুখরিত হয়ে পড়বে জয়পুর কবিধাম। এ বছর লক্ষাধিক মতুয়া অনুসারী কবিধামে উপস্থিত হবেন বলে আয়োজকরা আশা করছেন। উজ্জ্বল রায় নড়াইল জেলা প্রতিনিধি জানান, (শুক্রবার ২০-২)সাধক কবি তাঁরক গোঁসাইয়ের ১০৫ তম তিরোধান দিবস। এ উপলক্ষ্যে

ইতিহাস থেকে জানা গেছে, সাধক পুরুষ তাঁরক গোঁসাই নড়াইলের  উপজেলার ঐতিহ্যবাহী জয়পুর গ্রামে বাংলা ১২৫২ সালের ১৫ অগ্রহায়ন জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম কাশীনাথ সরকার, মা অনপূর্না দেবী। কাশীনাথ ছিলেন একজন পেশাদার কবিয়াল।

কবি গান গেয়েই তিনি জীবিকা নির্বাহ করতেন। সন্তান না হওয়ায় পুত্রেষ্টী যজ্ঞ করে তিনি পুত্র সন্তান তাঁরককে লাভ করেন। পার্শবর্তী ছাতড়া গ্রামের পাঠশালায় তিনি শিক্ষা লাভ করেন। তাঁরক গোঁসাই বহু অলৌকিক কর্মের অধিকারী ছিলেন। ছোট বেলা থেকেই তিনি পিতার মতো কবিগান রপ্ত করেন এবং পরবর্তীতে কবিগান গেয়ে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন।

তিনি কবিগান পরিবেশনের পাশাপাশি কবিতা লিখতেন। তাঁর রচিত প্রায় আটশো কবিতা রয়েছে। তিনি মতুয়া ধর্ম প্রচারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। তিনি ‘হরিলীলামৃত’ গ্রন্থ রচনা করে গেছেন। বাংলা ১৩২১ সালের ফাল্গুন মাসের শিব চতুর্দশী তিথিতে তিনি ইহলোক ত্যাগ করেন। জয়পুর পরশ মনি মহাশ্বশানে তার শেষকৃত্যানুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

শ্রী তাঁরক চাঁদ মতুয়া সংঘের সভাপতি বিজয় সিকদার জানান, তাঁরক গোঁসাইয়ের ১০৫ তম তিরোধান দিবস উপলক্ষ্যে ২ দিন ব্যাপি কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ২০ ফেব্রুয়ারী অধিবাস, ২১ ফেব্রুয়ারী মহোৎসব, ২২ ফেব্রুয়ারী মীন মহোৎসব। তাঁরক গোঁসাইয়ের ১০৫ তম তিরোধান দিবস উপলক্ষ্যে কবিধাম সেজেছে অপরুপ সাজে। এ বছর লক্ষাধিক মতুয়া অনুসারী তাঁরকধামে উপস্থিত হবেন বলে আয়োজকরা আশা করছেন।

এদিকে, তাঁরক গোঁসাইয়ের ১০৫ তম তিরোধান দিবস উপলক্ষ্যে লক্ষ্মীপাশাস্থ শ্রী শ্রী সিদ্ধেশ্বরী কালিমাতা মন্দির ও জয়পুর পরশমনি মহাশ্বশ্মানেও অনুরুপ কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে। নড়াইলের লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আলমগীর হোসেন বলেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভাবে অনুষ্ঠান সম্পন্ন করার জন্য আইন শৃঙ্গলা বাহিনীকে প্রস্তুুত রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুকুল কুমার মৈত্র বলেন, তাঁরক গোঁসাইয়ের তিরোধান দিবস সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন করার জন্য সকল প্রস্তুুতি গ্রহন করা হয়েছে উজ্জ্বল রায় নড়াইল জেলা প্রতিনিধি।

Please follow and like us:
error

About jahir

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

যিশু খ্রিস্টের জন্মদিন কেন বড়দিন হিসেবে পরিচিত?

বড়দিন খ্রিস্টানদের প্রধান ধমীয় উত্‍সব খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উত্‍সব ক্রিসমাস। ২৫শে ...