সোমবার, ১০ মে ২০২১, ১১:৫০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
করোনা মুক্তির দোয়া করতে মুসলমানদের মসজিদে যাওয়ার অনুরোধ করলো ভারতের পুলিশ লক্ষ্মীপুরে ভুমি কর্মকর্তাকে মারধর মামলায় : আ’লীগ নেতা গ্রেপ্তার মিরসরাই সমিতি কুয়েতের উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিল ঈদের আগে স্বর্ণের দামে সুখবর কাঁকনহাটে গম জব্দ অভিযোগের তীর উঠেছে মেয়রের দিকে নড়াইলে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা নকলায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক ভবনে আগুন। ২ লাখ খামারি ২৯২ কোটি টাকা প্রণোদনা পাবে পাকেরহাটে নাসিম সমাজকল্যাণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ তানোরে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান নিয়ে মেয়রের প্রচারণা ? শ্যামনগর জোবেদা সোহরাব মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় অভ্যন্তরে ঢালাই রাস্তার উদ্বোধন স্বাস্থ্যবিধি মেনে দেশব্যাপী রাতে গণপরিবহন চালুর দাবি করোনায় ঈদবাজার ও ঈদ উদযাপন  সাইফুল ইসলাম চৌধুরী  ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টের সুফল পাচ্ছেনা বরিশালবাসী মা দিবসের শুভেচ্ছা

অপরিকল্পিত উন্নয়ন ও দুর্নীতি বন্ধের দাবি সম্মিলিত শিক্ষক সমাজের

জাবি প্রতিনিধি:

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উন্নয়নের ‘মহাপরিকল্পনায়’ সীমাহীন দুর্নীতি, লুটপাট ও পরিবেশবান্ধব উন্নয়নের পরিবর্তে অপরিকল্পিত উন্নয়ন হচ্ছে দাবি করে তা অতিদ্রুত বন্ধ করতে সংবাদ সম্মেলন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় সম্মিলিত শিক্ষক সমাজ।

বুধবার (২৮) আগস্ট দুপুর ১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদের শিক্ষক লাউঞ্জে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ দাবি জানান শিক্ষক সমাজের নেতৃবৃন্দ।

সম্মিলিত শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক অধ্যাপক আবদুল জব্বার হাওলাদার ও সদস্য সচিব অধ্যাপক মো. জামাল উদ্দীন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিকতর উন্নয়নের জন্য অর্থ বরাদ্দের পর থেকে ‘মহাপরিকল্পনা’ প্রণয়ন ও বাস্তবায়নকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাসে যেসব ঘটনা ঘটছে তাতে তারা ক্ষুদ্ধ।

‘মহাপরিকল্পনা’ হবে স্বচ্ছ ও সবার অংশগ্রহণে কিন্তুু বর্তমান প্রশাসন স্বৈরতান্ত্রিক মনোভাব দেখিয়ে উন্নয়নের নামে তথাকথিত উন্নয়ন করছে। সেই সাথে এই উন্নয়নকে দুর্নীতি ও লুটপাটের উন্নয়ন বলে আখ্যা দিয়েছেন তারা।

সাম্প্রতিক সময়ে দুর্নীতির বড় গলদ হিসাবে ছাত্রলীগের নানা উপদল, ব্যক্তি ও নানা হলের নেতাকর্মীদের দুই কোটি টাকা ভাগ দেয়ার অভিযোগ করা হয় সংবাদ সম্মেলনে।

এদিকে দুই কোটি টাকার দুর্নীতি ও উন্নয়নকাজে লুটপাটের পরিকল্পনা পূর্ব থেকেই ছিল বলে দাবি করেন তারা। স্বাধীন সাংবাদিকরা যাতে প্রশাসনের দুর্নীতি ও লুটপাটের তথ্য জাতির কাছে প্রকাশ করতে না পারে সেজন্য কলমযোদ্ধাদের ওপর ছাত্র-শৃঙ্খলা বিধি নামে কালো আইন চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। যার বড় নজির প্রথম আলো ও বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি পেশাগত কাজে গিয়ে স্বয়ং উপাচার্য ও প্রশাসনপন্থী শিক্ষক কর্তৃক লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনার কথা উল্লেখ করেন তারা।

এর আগে প্রকল্পের কাজ শুরুর সময়ের দরপত্র ছিনতাইয়ের ঘটনায় প্রশাসন নির্বিকার থেকেছে বলে দাবি তাদের।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মত সুমহান প্রতিষ্ঠানে এমন দুর্নীতি এবং স্বেচ্ছাচারিতা হয়ে থাকলে তা তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া কর্তাব্যক্তিদের কর্তব্য। কিন্তুু প্রশাসন তাদের নীতিতে অনড় রয়েছেন। দুর্নীতির অভিযোগ পত্রিকার প্রকাশিত হলেও কর্তৃপক্ষ কোন বক্তব্য দেন নি। তাই অতিদ্রুত ঘটনার সুষ্ঠ বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করার দাবি করেন নেতৃবৃন্দ।

প্রশাসনের ‘মাস্টারপ্ল্যানের’ বিষয়ে সংবাদ সম্মলনে বলা হয়, একটি স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতামূলক কমিটি গঠনের মাধ্যমে পরিবেশবান্ধব অধিকতর উন্নয়ন করার কথা থাকলেও ছুটির দিনে জনমতকে উপেক্ষা করে অনৈতিকভাবে বৃক্ষ কর্তন করে প্রশাসন তার একচেটিয়া মনোভাবের বহি:প্রকাশ করেছেন।

প্রশাসনের অগণতান্ত্রিক মনোভাবের কারণেই সিন্ডিকেট, ডিন, অর্থকমিটিসহ বিভিন্ন পর্ষদের মেয়াদোত্তীর্ণ নির্বাচন হচ্ছে না বলে দাবি করে শিক্ষক সমাজ।

Please Share This Post in Your Social Media


বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

https://twitter.com/WDeshersangbad

© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone