শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০৫:০৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
গৃহহীনদের ঘর দেয়ার কথা বলে অর্থ নেয়ার অভিযোগে সাঁথিয়ায় আ’লীগ নেতাকে শোক’জ করোনায় ১৫ দিনে ১২ ব্যাংকারের মৃত্যু পৃথিবীতে কোনো জালিম চিরস্থায়ী হয়নি: বাবুনগরী যারা আ.লীগ সমর্থন করে তারা প্রকৃত মুসলমান নয়: নূর চট্টগ্রামে বেপরোয়া হুইপপুত্র যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা অক্সিজেনের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে ভারতে ৪ ঘণ্টা পর পাকিস্তানে খুলে দেয়া হলো সোশ্যাল মিডিয়া করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১০১ জনের মৃত্যু ভাড়াটিয়াকে তাড়িয়ে দিলেন বাড়িওয়ালা, পুলিশের হস্তক্ষেপে রক্ষা জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে জনপ্রিয় নায়িকা মিষ্টি মেয়ে কবরী স্বামী পরিত্যক্তা নারীকে গণধর্ষণ, আটক ৩ দুই দিনের রিমান্ডে ‘শিশুবক্তা’ রফিকুল লকডাউনেও মসজিদে মসজিদে মুসল্লিদের ঢল বেনাপোলে ৮৮ কেজি গাঁজাসহ মাদক কারবারী আটক

আসুন সকলে মিলে বন্ধ করি বাল্যবিবাহ

সামাজিক কারণে বাংলাদেশে “বাল্যবিবাহের”  প্রবণতা । সবচেয়ে বেশি। অশিক্ষা ও অসচেতন তার কারণে অভিভাব করা কন্যা সন্তানকে নিজের বোঝা মনে করেন। তারা পিতা- মাতা  মনে করেন কন্যা সন্তান ভবিষ্যতে।  তাদের কোন কাজে লাগবে না । বরং বিয়ে দিতে গিয়ে আরো বাড়তি – খরচ যেমন যৌতুক সহ নানা রকম ঝামেলায় নিজেকে পড়তে হবে।
ফলে পিতা-মাতা অল্প বয়সে বিয়ে দেওয়াটাকেই
যুক্তির কাজ মনে করে থাকেন।  পিতা-মাতা
তাদের যুক্তি দেখে আমাদের সমাজের মানুষ  দিনের পর দিন অন্ধ হয়ে অনেকের পিতা-মাতা
তাদের ভুলের কারণে অনেক মেয়েরা। এখন দুঃখ কষ্ট করেও বেঁচে আছে । তাই আর নতুন করে কোথায় যেন কারো পিতা-মাতা এই ধরনের ভুল না করে ফেলে তাই আমরা সতর্ক থাকা উচিত ।

একটা কথা চিন্তা করা উচিত কারণ আমাদের মত তাদের ও একটি জীবন আছে।  কম বয়সে বিয়ে দিলে দেখা যায় ।  কয়েক মাসের মধ্যেই  তাদের বিভিন্ন।  সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় তাদের আবার দেখা যায় ।  গর্ভবতী  হয়ে যান তাদের পড়ে অনেক সমস্যা দেখা যায়।  তখন সিজার, করতে লাগে নানা রকম সমস্যা দেখা দেয়। শুধু কম বয়সে বিয়ের কারণে এগুলো হয় কোন সময় সন্তান জন্ম দেওয়ার সময় মায়ের
মৃত্যু হয়।

আমরা কিভাবেই এগিয়ে যাবো এগিয়ে যেতে হলে। আগে “বাল্যবিবাহ” বন্ধ করতে হবে না
হলে এক দিকে শান্তি আর অন্য দিকে  অশান্তি কিভাবে ও কোথায় থাকবে আমাদের । ভবিষ্যতে।
শহরে ও গ্রামে বিভিন্ন জায়গায়। শুধু বাল্যবিবাহ
দেখা যায়। তার সাথে সাথে পালিয়ে কম বয়সে
বিয়ে ও করতেছে। তারা ১৩ -১৪বয়সে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে প্রেগন্যান্ট। হয়ে যায়। এ সমস্যা গুলো সমাজে আছে ধরনের বিয়ের জন্য
বৈধতার। আইনের ব্যবস্থা আমাদের নিতে হবে।

আমাদের শুধু নিজের কথা ভাবলে হবে না অন্যদের কথাও চিন্তা করার প্রয়োজন। থাকতে হবে আমরা নিজেই যদি দেশে শান্তি। পেথে চাই
যে গুলো কাজ করতে হবে। (বাল্যবিবাহ) প্রথম আমাদের সকলে মিলে বন্ধ করতে হবে আমরা নিজেই যদি বন্ধ না করতে পারি আইনের ব্যবস্থা
নিতে হবে।  আমাদের তাহলে আমাদের দেশে বন্ধ হবে বাল্য বিবাহ

গ্রামাঞ্চলের অনেক অভিভাবক ভাবেন তার। পরিবারের মানসম্মানের কথা, ভাবেন তিনি সমাজের অতি দরিদ্র একজন মানুষ। যেদিন তার কন্যাসন্তান জন্মগ্রহণ করল, সেদিন থেকেই যেন পরিবারের কর্তার মাথায় একটা পাহাড় সমান বোঝা চেপে বসল। সেদিন থেকেই চিন্তায় চিন্তায় তার জীবন যেন ছারখার! তার মেয়েটা একটু বড় হওয়ার পর বয়সে বড় না হলেও দেখতে বড় হলে চিন্তার মাত্রা টা দ্বিগুণ হয়ে যায়। কোনোমতে ১২-১৩ বছর হলেই পরিবারের কর্তার দিন-রাত দৌড় শুরু হয়ে যায় ঘটকের পেছনে। যেন কোনোমতে। বিয়েটা দিতে পারলেই চিন্তা গুলো দূর হয়ে যাবে। বরং নিজের চিন্তা দূর করতে গিয়ে মেয়ের জীবনটা নিজের হাতেই  নিজে কুরবানী দিলাম।
সাঁতার কাটা না শিখেই কি আপনি কোন নদীতে ঝাঁপ দেবেন? এই রকম বোকার মতো কাজ করা এতই বিপদজনক যে আপনি এমনকি মারাও যেতে পারেন। তাহলে নিজের মেয়েকে কম বয়সে বিয়ে থেকে দূরে থাকি।
বাল্যবিবাহ শুধু মাত্র মায়ের স্বাস্থ্যই না বরং শিশুর স্বাস্থ্যের জন্য ও হুমকি ১৮ বছরের নীচে মেয়েদের অপরিণত সন্তান জন্মদান বা কম ওজনের সন্তান জন্মদানের সম্ভাবনা ৩৫-৫৫%। তাছাড়াও শিশু মৃত্যুর হার ৬০% যখন মায়ের বয়স ১৮ বছরের নীচে। যেসব নারী কম বয়সে শিশুর জন্ম দেয় ঐসব শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয় ও শিশু অপুষ্টিতে। ভোগার  সম্ভাবনা বেশি। বাল্যবিবাহের প্রাদুর্ভাবের কারণে জনসংখ্যার হার বৃদ্ধি পায়।
আমাদের এলাকায়। আমারই চোখে, সামনে এক মেয়ে তার বয়স আনুমানিক। মাএ ১৩-১৪ বছর বয়সে বিয়ে হয়েছিল এক’বছর না যেতেই সেই এখন কন্যা সন্তানের মা। আর স্বামীও থাকে ছেড়ে গেছেন সন্তান জন্মের আগে।  মেয়েকে নিয়ে অনেক কষ্ট।  করতে করতে। জীবনটাকে এক শেষ পর্যায় গ্রাম ও বস্তিবাসী” মা-বাবা সাথে বাকি জীবন কাটিয়ে ছিলেন বলছিলেন, হতদরিদ্র। পরিবারে শারীরিক, মানসিক এক যন্ত্রণার জীবন এক তাঁর ।
মেয়ে হওয়ার আগে আমার ওজন ছিল ৪৫ কেজি। বাচ্চা হওয়ার পর এহন ৩২ কেজি আমার বাচ্চা হইছে সিজারে।  অনেক ধরনের সমস্যা ।  মাজা কোমরে ব্যাথা, শরীল দুর্বলতা সবই এখন দেখা যায়” সেই আর বলছিলেন, তার অগোচরেই ।  তিনি গর্ভবতী হয়েছিলেন।  চিকিৎসা বিজ্ঞান অনুযায়ী
অল্প বয়সে বিয়ে এবং গর্ভধারণের । ফলেই এসব সমস্যা দেখা দিচ্ছে ।
এর পাশাপাশি এ ক্ষেত্রে সরকারকেও আইনের মাধ্যমে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে।
লেখক:

আল-আমিন আহমেদ’ জীবন

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38449226
Users Today : 850
Users Yesterday : 1193
Views Today : 5693
Who's Online : 27
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone