সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৪:৪০ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ ১৬ কোটি ৩৭ লাখেরও বেশি মানুষের দেহে করোনা শনাক্ত গাজায় একদিনেই ৪২ জন নিহত রাজারহাটে ইউপি চেয়ারম্যান রবীনন্দ্রনাথ কর্মকারের বিরুদ্ধ প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহারের টাকা মারিং কাটিং করে খাওয়ার অভিযোগ। মাগুরায় অসাধু মাংস ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটে অতিষ্ঠ সাধারণ ক্রেতা যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না সোমবার পুরো পরিবার শেষ, বাঁচল শুধু পাঁচ মাসের শিশুটি ২৯ মে পর্যন্ত বাড়লো প্রাথমিকের ছুটি নাড়ির টানে ঘরে ফেরা, পদ্মায় ঝরলো ৩১ প্রাণ ইসরাইলি ববর্তার বিরুদ্ধে উত্তাল বিশ্ব বেড়েছে লকডাউন, বন্ধই থাকছে লঞ্চ-ট্রেন-দূরপাল্লার বাস যুক্তরাষ্ট্র সফরে গেলেন বিমান বাহিনীর প্রধান ওআইসি’র বৈঠক জরুরি ভিত্তিতে ফিলিস্তিন ইস্যুর সমাধান চায় বাংলাদেশ ৪ দেশে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট বাতিল শিগগিরই দেশে আসছে শক্তিশালী ব্যাটারি ও আল্ট্রা স্লিম ডিজাইনের অপো এফ১৯

গাইবান্ধার ত্রিমোহিনী রেল স্টেশন বন্ধ থাকায় যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি: পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের গাইবান্ধা-বোনারপাড়া রেল সেকশনের ত্রিমোহিনী রেলওয়ে জংশন স্টেশনটি বন্ধ থাকায় দুর দুরান্তে যাতায়াতকারী রেল যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এই রেল স্টেশনটি পুনরায় চালু করার জন্য এলাকার সর্বস্তরের মানুষ দীর্ঘদিন যাবৎ দাবী জানালেও তাতে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ কোনই কর্ণপাত করছেন না। ত্রিমোহিনী জংশন স্টেশন বন্ধ করা হলেও এই স্টেশনে এখনও প্রতিদিন সান্তাহার-লালমনিরহাট ও সান্তাহার-পঞ্চগড়ের মধ্যে চলাচলকারী ৭টি লোকাল আপ ও ডাউন ট্রেনের স্টপেজ রয়েছে। কিন্তু কোন ইন্টারসিটি ট্রেনের স্টপেজ নেই। টিকিট কাউন্টার না থাকায় যাত্রীদের ট্রেনে উঠে টিকিট চেকারের কাছ থেকে টিকিট সংগ্রহ করতে হয়। স্টেশনে যাত্রীদের বসার জায়গা ও টয়লেট নেই। বৈদ্যুতিক আলো না থাকায় এবং ট্রেন কখন আসবে তা জানার ব্যবস্থা না থাকায় ট্রেন যাত্রীদের চরম বিপাকে পড়তে হচ্ছে। নারী যাত্রীদের এক্ষেত্রে নিরাপত্তাসহ নানা সমস্যার সম্মুখিন হতে হয়। ত্রিমোহিনী জংশন স্টেশন মাস্টার ও টিকিট কাউন্টারের কক্ষে তালা ঝোলানো। ২০১৬ সালের মার্চ মাসে এই স্টেশনটি বন্ধ করার পর থেকেই এখানকার স্টেশন মাস্টারসহ রেলের সব স্টাফ স্টেশন ছেড়ে চলে যায়। সেই থেকে অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে আছে স্টেশন ও কাউন্টার কক্ষ। স্টেশন সংলগ্ন জমিয়ে রাখা মূল্যবান রেলের লোহার পাতসহ সব জিনিসপত্র খোয়া যাচ্ছে। স্টেশনের পাশের রেলওয়ের স্টাফ কোয়াটারটি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থেকে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। স্টেশন ও স্টাফ কোয়াটারের জমি দখল করে তাতে ধান চাষ ও কলা চাষ সহ নানা ফসল চাষ করছে এলাকার লোকজন। স্টেশনের আশেপাশের এলাকা দখল করে বাড়ি-ঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হয়েছে। ত্রিমোহিনী জংশন স্টেশন থেকেই বালাসী ফেরীঘাট এবং বোনারপাড়া-সান্তাহার এই দুটি রেল সেকশনে রেল চলাচল অব্যাহত ছিল। ব্রহ্মপুত্র নদের বালাসী-বাহাদুরাবাদঘাট হয়েই রেলওয়ে ফেরী পারাপারের মাধ্যমেই দেওয়ানগঞ্জ-জামালপুর-ময়মনসিংহ হয়ে রাজধানী ঢাকার সাথে উত্তরাঞ্চলের ৮টি জেলার রেল যোগাযোগ ছিল। বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে রেল ও সড়ক যোগাযোগ চালু হওয়ার পর রেল কর্তৃপক্ষ এই রুটে ফেরী চলাচল বন্ধ করে দেয়। ফলে ত্রিমোহিনী-বালাসীঘাট রেলপথে রেল চলাচল বন্ধ হয়ে রেল লাইনও পরিত্যক্ত হয়ে যায়। রেলওয়ে ফেরী চলাচল শুরু করে বিকল্প এই পথে আবারও ঢাকার সাথে উত্তরাঞ্চলের রেল চলাচলের উদ্যোগ ইতোপূর্বে একাধিকবার নেয়া হলেও এখনও তা বাস্তবায়িত হয়নি। ফলে ময়মনসিংহ ও জামালপুর যাতায়াতের ক্ষেত্রে এতদাঞ্চলের যাত্রীদের ফেরি যোগাযোগ না থাকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নৌকায় নদী পার হয়ে দেওয়ানগঞ্জ রেল স্টেশনে থেকে ঢাকায় যেতে হচ্ছে। ত্রিমোহিনীতে সব লোকাল ট্রেনের স্টপেজ মাত্র ২ মিনিট হলেও ১ মিনিটের বেশী এই স্টেশনে ট্রেন থামে না। এতে যাত্রীদের ট্রেনে উঠানামা করতে বিশেষ করে বয়স্ক নারী-পুরুষ ও শিশুদের নিয়ে বিপাকে পড়তে এলাকাবাসী অবর্ণনীয় দুর্ভোগের কথা জানিয়ে দ্রুত স্টেশনটি চালু করার দাবি জানান।

Please Share This Post in Your Social Media

https://twitter.com/WDeshersangbad


বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone