রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৬:৫৮ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
রাজধানীর দুই এলাকায় করোনার সর্বাধিক সংক্রমণ গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদন শেষ হচ্ছে ১৫ এপ্রিল রামগতিতে ট্রাক্টরচাপায় শিশুর মৃত্যু সন্ধ্যা ৬টার পর ফার্মেসি-কাঁচাবাজার ছাড়া সব দোকান বন্ধ বিয়েবাড়িতে মেয়েদের নাচানাচির ছবি তোলা নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ৩০ পাঁচ উপায়ে দূর করুন বিরক্তিকর ব্রণ ডালিমের ১০ আশ্চর্য গুণ যুক্তরাষ্ট্র প্রতিবছরে একশত বিলিয়ন মার্কিন ডলারের জলবায়ু তহবিল করবে বাসাভাড়া নিতে বাড়িওয়ালাকে নকল স্বামী দেখালেন প্রভা! প্রথম দিনেই ব্যাপক সাড়া ফেলেছে ‘মহব্বত’ সংকটে করোনা রোগীরা হাসপাতালগুলোতে ঘুরেও মিলছে না শয্যা অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা ব্রিটেনের রানি ও প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার চিঠি টিকা প্রতিরোধী ভয়ঙ্কর ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল হবে বাংলাদেশ! লকডাউনে পোশাক কারখানা বন্ধ কিনা, জানা যাবে কাল

জাবি উপাচার্যকে আন্দোলনকারীদের পদত্যাগের আল্টিমেটাম ও অবাঞ্ছিত ঘোষণা

জাবি প্রতিনিধি:

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পে ‘দূর্নীতি ও অনিয়মে’র অভিযোগের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সাথে আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের আলোচনা কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হয়েছে।

বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকাল সাড়ে ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনে আলোচনা শুরু হয়। দীর্ঘ  আড়াই ঘন্টাব্যাপী এ আলোচনা কোন ধরনের সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হয় সন্ধ্যা ৭টায়। আলোচনা শেষে তারা সংবাদ সম্মেলন করে উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি করেন।

আগামী ১ অক্টোবরের মধ্যে উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি এবং আসন্ন ভর্তি পরীক্ষায় উপাচার্যকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়েছে। আন্দোলনকারীরা বলছেন তিন দফা দাবিতে শুরু হওয়া আন্দোলনের দুটি দাবি এর আগে মেনে নিলেও ‘দূর্নীতি’র অভিযোগ তদন্তের দাবিটি মেনে নিতে উপাচার্য গড়িমসি করছেন। তারা বলছেন এ বিষয়ে আরো সময় চাইছেন উপাচার্য।

আন্দোলনকারীরা জানান, ‘উপাচার্যের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ ওঠার পরে এই গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকার তার নৈতিক অধিকার নেই। আগামী ১ অক্টোবরের মধ্যে তাকে সম্মানের সহিত পদত্যাগ করতে হবে। নতুবা কঠোর কর্মসূচিতে যাওয়া হবে। এর মধ্যে নিয়মতান্ত্রিক কর্মসূচি চলবে।’
অপরদিকে আসন্ন ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামকে সকল পরীক্ষাকেন্দ্রে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন আন্দোলনকারী শিক্ষক শিক্ষার্থীরা।

যতক্ষন পর্যন্ত উপাচার্য পদত্যাগ করবেন না ততক্ষন পর্যন্ত উপাচার্যকে সর্বাত্মক প্রত্যাখান করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন আন্দোলনকারীরা।
এদিকে আগামীকাল ১৯ তারিখ বৃহস্পতিবার ‘দূর্নীতি’ তদন্তের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করবেন বলে জানিয়েছেন তারা।

এ প্রসঙ্গে ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম অনিক বলেন, ‘উপাচার্যের সাথে আজকের আলোচনা ফলপ্রসূ হয়নি। তিনি তদন্তের বিষয়ে গড়িমসি করছেন। আরো সময় চাইছেন। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তার সাথে কথা হয়েছে তবে আলোচনা থেকে কোন সিদ্ধান্তে আসা যায়নি।”

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্পে দুর্নীতি ও অপরিকল্পনার অভিযোগ এনে তিন দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। আন্দোলন চলা অবস্থায় চাপের মুখে গত ১২ সেপ্টেম্বর আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে বাধ্য হয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আলোচনায় তোপের মুখে দুটি দাবি মেনে নেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তবে দুর্নীতির বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবিটি অমীমাংসিত রেখেই শেষ হয় সেদিনের আলোচনা সভা। এছাড়া দুর্নীতির বিষয়ে তদন্তের সিদ্ধান্ত নিতে বুধবার পর্যন্ত (তিন কার্য দিবস) সময় নেয় প্রশাসন। সে অনুযায়ী পূর্ব নির্ধারিত সময়ে আজ এ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. মোঃ নূরুল আলম, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মোঃ মনজুরুল হক, রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ, প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী নাসির উদ্দিন এবং নির্বাহী প্রকৌশলী (সিভিল) আহসান হাবিব অংশ নিয়েছিলেন। তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিরুদ্ধে মোবাইল ফোনে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার অভিযোগ এনে সভা বর্জন করেছেন উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মোঃ আমির হোসেন।

আন্দোলনকারীদের পক্ষে আলোচনায় অংশনেন, ‘দূর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে আন্দোলনকরা শিক্ষক পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক খবির উদ্দিন, দর্শন বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ কামরুল আহসান, রায়হান রাইন, এ এস এম আনোয়ারুল্লাহ ভূঁইয়া, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক শামীমা সুলতানা, তারেক রেজা প্রমুখ। এছাড়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছিলেন জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম পাপ্পু, ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সভাপতি নজির আমিন চৌধুরী জয়, কার্যকরী সদস্য রাকিবুল রনি, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ দিদার, সাংগঠনিক সম্পাদক শোভন রহমান, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট (মার্ক্সবাদী) সভাপতি মাহাথির মোহাম্মদ, সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত দে এবং বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ জাবি শাখার মুখপাত্র খান মুনতাসির আরমান, আহ্বায়ক শাকিল উজ্জামান।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের বরাদ্দৃকত টাকা থেকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগকে এক কোটি এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগকে এক কোটিসহ মোট ‘দুই কোটি টাকা দেওয়ার’ অভিযোগ উঠে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিরুদ্ধে। এই অভিযোগের বিচার বিভাগীয় তদন্তসহ অধিকতর উন্নয়ন মহাপরিকল্পনা পূনর্বিন্যাস ও আবাসিক হল নির্মাণের স্থান পূনর্নির্ধারণের দাবি জানিয়ে ‘দূর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে আন্দোলন করছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38441038
Users Today : 514
Users Yesterday : 1570
Views Today : 4224
Who's Online : 18
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone