সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৯:৩০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বেগমগঞ্জে সন্ত্রাসী কালা বাবু গ্রেফতার, বাঁশ ঝাড় থেকে অস্ত্র উদ্ধার বসুরহাট কান্ড : ফের আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের জেরে ফের পাল্টাপাল্টি মামলা সোনাইমুড়ী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক চাঁদাবাজির মামলায় কারাগারে। __ পুলিশের কাছে তিন বিয়ের কথা স্বীকার মামুনুলের আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলায় স্বামীর চোখ উৎপাটন তানোরে তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে এক হাজার টাকার চাঁদাবাজি মামলা  ! লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর সুপারিশ লাইভে ক্ষমা চাইলেন নুর লন্ডনে তালা ভেঙে অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামালের জামাতার লাশ উদ্ধার সোয়া কোটি মানুষের জন্য মোটে ২৬টি আইসিইউ বেড! বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয় ‘হাসপাতালে ভর্তির ৫ দিনের মধ্যে মারা যাচ্ছেন ৪৮ শতাংশ করোনা রোগী’ ‘নিজের মাথার ওপর নিজেই বোমা ফাটানো’ এটা সম্ভব? মামুনুলের মুক্তি চেয়ে খেলাফত মজলিস নেতাদের হুশিয়ারি বাংলাদেশে করোনা টানা তৃতীয় দিনের মতো শতাধিক মৃত্যুর রেকর্ড

জুতা পায়ে শহীদদের বেদিতে পুষ্পমাল্য অর্পণকারী ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের কান্ড!

মোবাইলে শিক্ষক লাঞ্ছিতের হুকুমের অভিযোগ:থানায় শিক্ষকদের জিডি
আনোয়ার হোসেন,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:তারিখ-২২.০১.২০ইং
গত ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসে জুতা পায়ে শহীদদের বেদিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা সেই ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু তাহেরের বিরুদ্ধে সম্প্রতি তার সহকর্মী কলেজ শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে। এরপর কলেজের ১০জন শিক্ষক পরদিন উলিপুর থানায় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে অভিযুক্ত করে একটি সাধারণ ডায়রি করেন। প্রত্যক্ষদর্শী ও কলেজ সুত্রে জানা যায়,জেলার উলিপুর সরকারি ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু তাহের বিগত তিন বছরের অধিক সময় ধরে এ কলেজে অধ্যক্ষের দায়িত্বে রয়েছেন। বিভিন্ন সময়ে তার বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারিদের সাথে নানা কারনে অকারনে অন্যায়ভাবে হয়রানি করা হয় বলে অভিযোগ। সেই সাথে সম্প্রতি গত কয়েকদিন আগে বহিরাগত সন্ত্রাসী দিয়ে শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।উলিপুর সরকারি কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক আসাদুল হাবিব আরিফ অভিযোগ করেন,গত ১৪ই জানুয়ারি দুপুর আনুমানিক ১২টার দিকে কলেজ চলাকালীন জনৈক আব্দুর রউফ নামে হঠাৎ কলেজ ক্যাম্পাসের ভিতরে ঢুকে কোন কারণ ছাড়াই আমাকে লাঞ্ছিত করেন। এতে পার্শ্ববর্তী শিক্ষকগণ তাকে নিবৃত করার চেষ্টা করেন। পরে সে ব্যক্তি দ্রুত চলে যান। এরপর জানা যায় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোবাইল ফোনে দুই শিক্ষককে মারার নির্দেশনা দিয়েছেন, যা অডিও বার্তা সংরক্ষিত রয়েছে। অডিও বার্তায় জানা যায়, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু তাহের তার পরিচয় দিয়ে মোবাইল ফোনে আব্দুর রউফকে কলেজের দুই শিক্ষক আসাদুল হাবিব আরিফ ও প্রশান্ত কুমার পালকে দুই গালে দুই চর থাপ্পরসহ লাঞ্ছিতের হুকুম দিচ্ছেন। তাকে বোঝানোর চেষ্টা করছেন যে, যেন তার কথা কাউকে না বলা হয়। এরপর থেকে অন্যান্য শিক্ষকদের হুমকী-ধামকী প্রদান করার কারনে নিরাপত্তার অভাবে কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়রী (জিডি) করেছেন ওই কলেজের সকল শিক্ষক।এদিকে,তার বিরুদ্ধে শিক্ষকগণ জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, রংপুর আঞ্চলিক পরিচালক ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ করেন। থানায় ডায়রির কারনে সোমবার দুপুরে শিক্ষকগণ কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার কার্যালয়ে তাদের জবানবন্দি প্রদান করেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, অধ্যক্ষ আবু তাহের মহান বিজয় দিবসে (১৬ই ডিসেম্বর) জুতা পায়ে ক্যাম্পাসের শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন। জুতা পায়ে থাকা শহীদ বেদির ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে অধ্যক্ষকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। এরপর তিনি গুরুতর আহত হয়ে উলিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেন। পরে অধ্যক্ষ বাদী হয়ে এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। সে সময় বিষয়টি জেলা প্রশাসকসহ স্থানীয় এমপি অবহিত হন এবং বিভিন্ন মিডিয়ায় এ ব্যাপারে সংবাদ প্রচারিত হলেও কোন সমাধান হয়নি। তবে এবারে শিক্ষক লাঞ্ছিতের কোন সুবিচার না পেলে শিক্ষকরা বড় ধরনের কর্মসূচির হুমকি দেন।কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার পাল এ ব্যাপারে জানান, সোমবার থানায় সাধারণ ডায়রি করার পর কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আমাদেরকে তলব করা হলে আমরা সেখানে ঘটনার বর্ণনা দিয়েছি। এ ব্যাপারে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু তাহের জানান,আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ বানোয়াট ও চক্রান্তমূলক।এর আগেও ফেসবুকে আমাকে নিয়ে মিথ্যাচার করা হয়েছে। তবে শিক্ষকরা বেশ কিছুদিন ধরে চক্রান্ত অব্যাহত রেখেছেন।উলিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেন অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে জিডির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,ঘটনা তদন্তের অনুমতি চেয়ে জিডির কপি আদালতে প্রেরণ করেছি। এ ব্যাপারে কুড়িগ্রাম-৩ আসনের(উলিপুর)সংসদ সদস্য ও শিক্ষা বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সদস্য অধ্যাপক এমএ মতিন জানান, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু তাহের সরকারি কলেজে থাকার একেবারেই অযোগ্য। তার ব্যাপারে ইতোমধ্যেই শিক্ষাসচিবসহ মন্ত্রী মহোদয়ও অবগত। অতি দ্রুত তার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। অভিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের ব্যাপারে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক মোছা. সুলতানা পারভীন অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে জানান,শিক্ষকদের অনেকেই তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন।তিনি জানান,অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের অডিও ক্লিপ ও ছবি

Please Share This Post in Your Social Media


বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38451408
Users Today : 612
Users Yesterday : 1242
Views Today : 4722
Who's Online : 61
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone