শনিবার, ১০ এপ্রিল ২০২১, ০৮:০৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
লকডাউনে শ্রমজীবীদের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন: কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী) গোবিন্দগঞ্জে ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলন রাজারহাটে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স উদ্ধোধন অনন্য বৈশিষ্ট্যের অধিকারী শায়খুল হাদীস আল্লামা ফখরুদ্দীন রহ  করোনা ইস্যু সমন্বয়ে প্রত্যেক জেলার দায়িত্বে সচিব করোনায় পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের মৃত্যু সন্দেহভাজন নাগরিকদের দেশত্যাগ নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আপিল করতে চায় দুদক প্রকাশিত সংবাদের একাংশের প্রতিবাদ জানিয়েছে মাওলানা জহিরুল ইসলাম ভিলিয়ার্স ঝড়ে চ্যাম্পিয়নদের হারালো বেঙ্গালুরু এ বছর ২০ ঘণ্টা না খেয়ে রোজা রাখবে যে দেশ প্রথম দেখাতেই এলিজাবেথের হৃদয়ে ঢুকে যান গ্রিক রাজপুত্র ফিলিপ কঙ্গোতে বাসে আগুন, ৪০ যাত্রী পুড়ে ছাই কমপ্লিট লকডাউন, যে যেখানে আছে সেখানেই থাকবে অর্পিত সম্পত্তির পাঁচ সমস্যা চিহ্নিত করে সমাধানের উদ্যোগ অনিচ্ছাকৃত গর্ভধারণ কনডম ব্যবহারের আগে যে ৫টি বিষয় মাথায় রাখবেন

‘রোগীর চাপ এতটাই বেড়েছে স্বাস্থ্যকর্মীদের হিমশিম খেতে হচ্ছে’

ঢাকা : স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, দেশে করোনা সংক্রমণ আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন।

বুধবার  (৭ এপ্রিল) দুপুরে এক ভার্চুয়াল মিটিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

লাফিয়ে লাফিয়ে করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় শংকা প্রকাশ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপ এতটাই বেড়েছে যে সেবা দিতে আমাদের স্বাস্থ্যকর্মীদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। অনেকে হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা পাচ্ছেন না।

দেশের ইতিহাসে আজও (বুধবার) করোনায় মৃত্যু ও শনাক্তের সংখ্যা সর্বোচ্চ।গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৩ জন। এ সময়ে করোনা ধরা পড়েছে ৭ হাজার ৬৬২ জনের শরীরে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা সব হাসপাতালে বেড বাড়ানোর চেষ্টা করছি। সাধারণ রোগী কমিয়ে করোনা রোগীদের জন্য বাড়তি বেডের ব্যবস্থার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।এতে সাধারণ রোগীদেরও কষ্ট হবে।

সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা আর করোনা রোগী বৃদ্ধি- দুটি মিলে স্বাস্থ্যসেবার ওপর বিরাট চাপ উল্লেখ করে জাহিদ মালেক বলেন, আমাদের চিকিৎসক ও নার্সরা কাজ করতে করতে পরিশ্রান্ত হয়ে পড়েছেন। তাদের আমরা ছুটি দিতে পারছি না। এখন যদি আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারি, তবে হাসপাতালে রোগীদের জায়গা দেওয়া সম্ভব হবে না।

মঙ্গলবারও (৬ এপ্রিল) স্বাস্থ্যমন্ত্রী উদ্বেগ ও শংকা প্রকাশ করেন। তিনি বলেছিলেন, প্রতিদিন যদি ৪-৫ হাজার রোগী বাড়ে তাহলে সারা শহরকে হাসপাতাল বানালেও সামাল দেওয়া সম্ভব না।

মন্ত্রী আরও বলেছিলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ প্রতিরোধে ঢাকার সব হাসপাতালে শয্যা বাড়ানোর ব্যবস্থা করছি। আড়াই হাজার শয্যাকে পাঁচ হাজার করা হয়েছে, এরচেয়ে বেশি বাড়ানো সম্ভব না।জনগণ সতর্ক না হলে মনে রাখতে হবে, পাঁচ হাজার শয্যার পর হাসপাতালগুলোতে এক ইঞ্চি জায়গা নেই আর শয্যা স্থাপনের।

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38440270
Users Today : 1316
Users Yesterday : 1410
Views Today : 11153
Who's Online : 46
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone