মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৭:৫৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
৭টি বৈশাখী ছড়া জঙ্গিনেতা মামুনুল হককে  গ্রেফতার – হেফাজতে ইসলামকে নিষিদ্ধ ও জঙ্গি সংগঠন ঘোষণা করুন: কমিউনিস্ট পার্টি(মার্কসবাদী) বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংক খোলা রাখার নির্দেশ সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ব্যাংক খোলা চাঁদ দেখা গেছে, বুধবার থেকে রোজা ঢাবি মেডিকেল সেন্টার আধুনিকায়ন করে শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. মোর্তজার নামে নামকরণের দাবি পণ্য বিপণনে সমস্যা হলে ফোন করুন জরুরি সেবায় ধর্মীয় নেতাকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় উত্তাল পাকিস্তান, গুলিতে নিহত ২ সাংবাদিকদের ‘মুভমেন্ট পাস’ লাগবে না খাদ্যপণ্যের বিজ্ঞাপনে একগুচ্ছ নিষেধাজ্ঞা আসছে, থাকছে জেল-জরিমানা হাতে বড় একটি ট্যাবলেট ফোন নিয়ে ডিজিটাল জুয়ার আসরে ব্যস্ত তরুণ-তরুণী রমজানের নতুন চাঁদ দেখে বিশ্বনবী যে দোয়া পড়তেন ফরিদপুরে চাের সন্দেহে গণপিটুনীতে একজন নিহত এটিএম বুথ থেকে তোলা যাবে এক লাখ টাকা যৌবন দীর্ঘস্থায়ী করে যোগ ব্যায়াম ‘শশাঙ্গাসন’

শোকযাত্রা ও শ্রদ্ধার্পণে হাসিমুখে কুবি রেজিস্ট্রার!

কুবি প্রতিনিধি:
একরকম হেসে-খেলে, ভাবগাম্ভীর্যতা পরিহার ও নানাবিধ অব্যবস্থাপনার মাধ্যমে দায়সারাভাবে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) জাতীয় শোক দিবসের বিলম্বিত শোকযাত্রা ও শ্রদ্ধার্পণ পালিত হয়েছে।
শোকযাত্রা ও শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণকালে খোদ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মোঃ আবু তাহেরকেই হাস্যরত অবস্থায় দেখা গেছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার আয়োজিত শোক দিবসের অনুষ্ঠানে এ ঘটনা ঘটে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক সূত্রে জানা যায়, ১৫ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে ঈদুল আজহার ছুটি থাকায়  আজ ২২ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অংশগ্রহণে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাৎবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শোকাযাত্রা ও বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণের আয়োজন করা হয়। শোকযাত্রাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
অভিযোগ ওঠেছে, এসময় ধারণ করা বেশকিছু ছবি ও ভিডিওতে শোকাযাত্রার অগ্রভাগে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের পাশে রেজিস্ট্রারসহ আরও কয়েকজনকে হাসতে দেখা যায়। বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যকে ‘কেউ হাসবা না’ বলতেও শোনা যায় এসময়।
শোকযাত্রা শেষে পুষ্পাঞ্জলি অর্পণের সময়কালে ধারণ করা বিভিন্ন ছবিতেও রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আবু তাহেরসহ কয়েকটি বিভাগের শিক্ষকদেরও হাস্যোজ্জ্বল অবস্থায় দেখা যায়। এতে অনেকেই বিব্রতবোধ করেন।
শুধু তাই নয়, গত ১৫ আগস্ট ধানমণ্ডির ৩২ নাম্বারে বঙ্গবন্ধুর বাসভবনে ফুল দেওয়ার সময়ও রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আবু তাহেরকে হাস্যরত অবস্থায় দেখা যায়। এসব ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার সৃষ্টি হয়। জাতীয় শোক দিবসের মতো বেদনাবহ ও গাম্ভীর্যপূর্ণ অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিভাবক পর্যায়ের একজন শিক্ষকের মুখে হাসি বেমানান ও দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেন অনেকে।
অভিযোগের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার (চলতি দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো: আবু তাহেরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘শোক দিবস পালন আসলে মনের ভেতরগত বিষয়। দুএকটা ছবিতে কী আসলো সেটা ধর্তব্য না। পুষ্পাঞ্জলি অনুষ্ঠান চলাকালে কখন কে কিভাবে ছবি তুলেছে সেটা বলতে পারি না। কেউ অহেতুক সমালোচনা করলে করুক। সমালোচনা সহ্য করা অভ্যাস হয়ে গেছে।’
এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় বঙ্গবন্ধু পরিষদ সমন্বয়কারী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক ড. ফিরোজ আহম্মেদ জানান, ‘জাতীয় শোক দিবস নিঃসন্দেহে একটি ভাবগাম্ভীর্যের আবহ বহন করে। এদিনের কোনো অনুষ্ঠানে কেউ হাসাহাসি করবে সেটা কাম্য নয়। তিনি (অধ্যাপক আবু তাহের) বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন কর্তাব্যক্তি হিসেবে তার সাথে এটা যায় না। তবে তিনি কোন অবস্থায় এটা করেছেন তিনিই ভালো বলতে পারবেন।’

Please Share This Post in Your Social Media

দেশের সংবাদ নিউজ পোটালের সেকেনটের ভিজিটর

38444172
Users Today : 1127
Users Yesterday : 1256
Views Today : 14772
Who's Online : 30
© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone