শিবপুরে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল শিশুর

 
রাব্বি সরকার, নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদীর শিবপুরে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে সিএনজি চাপায় প্রাণ হারালেন মিলন নামের ১০ বছরের এক শিশু। শুক্রবার (৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার দুলালপুর ইউনিয়নের মানিকদী দড়িপাড়া গ্রামের এএলএম নামক ইটের ভাটার সামনে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত মিলন লালমনিরহাট জেলার হাতিবান্ধা উপজেলার শেখ সিন্দুর গ্রামের মানিকের ছেলে। সে তার পরিবারের সাথে শিবপুরের ওই ইটের ভাটায় বসবাস করতো।
নিহতের পিতা মানিক জানায়, দীর্ঘদিন যাবৎ উপজেলার মানিকদী গ্রামের এএমএল নামক একটি ইটের ভাটায় শ্রমিকের কাজ করে আসছেন তিনি। পার্শবর্তী অন্য একটি ইটের ভাটায় লেবার সরদার হিসেবে কাজ করেন লালমনিরহাটের একই উপজেলার মিজান।মানিকের সাথে মিজানের পূর্ব শত্রুতা থাকায় গত শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় মানিককে উঠিয়ে নিতে স্থানীয় কিছু ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী পাঠায় মিজান।
সিএনজি যোগে সন্ত্রাসীরা মানিককে উঠিয়ে নিতে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে তার ছেলে শিশু মিলন বাবাকে বাঁচাতে জড়িয়ে ধরলে সন্ত্রাসীরা লাথি মেরে সিএনজির চাকায় পিষ্ট করে পালিয়ে যাওয়ার সময় একজনকে আটক করে মানিক। পরে মানিকের ডাকচিৎকারে ইটের ভাটার লোকজন ছুটে এসে আটককৃত আকাশ নামের একজনকে পুলিশে সোপর্দ করে এবং আহত শিশু মিলনকে শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
ঘটনার পর আটককৃত আকাশ ও অজ্ঞাত ৬/৭ জনের বিরুদ্ধে শিবপুর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দেননিহত মিলনের বাবা মানিক।
শিবপুর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মামুনুর রশীদ জানান, এই ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ পেয়েছি।অভিযোগের প্রেক্ষিতে দুজনকে আটক করা হয়েছে। জড়িত অন্যনান্যদের আটকের চেষ্টা চলছে। ময়না তদন্তের জন্য লাশ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।
Exit mobile version